টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট | অনলাইনে থেকে টাকা আয় করার ওয়েবসাইট (10টি)

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট | অনলাইনে থেকে টাকা আয় করার ওয়েবসাইট (10টি)


আজকাল যে কেউ অনলাইনে থেকে টাকা উপার্জনের উপায় খুঁজে থাকে । এর কারণ হল বর্তমানে প্রত্যেকের কাছে একটি স্মার্টফোন রয়েছে এবং এতে ভাল গতির ইন্টারনেট পাওয়া যায় । এই কারণেই আমরা ভেবেছি যে টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট আপনাকে বলা উচিত।


আপনি যখন ইন্টারনেটে যাবেন, আপনি এমন অনেক ওয়েবসাইট পেয়ে যাবেন তার মধ্য অনেকেই fake পেমেন্ট করে না আপনাকে অনেক কাজ করিয়ে নেবে এবং কিছু দেবে না । আপনি সর্বদা ইন্টারনেট থেকে টাকা উপার্জনের উপায়গুলি খুঁজে তো পেয়ে যাবেন আর বিভিন্ন ধরণের পাবেন তবে টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট সম্পর্কে ভালভাবে জানা খুব গুরুত্বপূর্ণ ।

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইটে
টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইটে


আজ আমরা আপনাকে একটি লিস্ট দেব যার মধ্য এমন ওয়েবসাইট রয়েছে যা আপনারা 100% টাকা আয় করার সুযোগ পাবেন । তাহলে চলুন জানা যাক 10 টি অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট এর সম্বন্ধে ।


আরো পড়ুন:-টাকা ইনকাম করার অ্যাপ 2021 | app দিয়ে টাকা ইনকাম | Top 20 Paytm earning apps 2021


অনলাইন থেকে টাকা আয় করার উপর কেউ গুরুত্বই দেয়নি, এই কারণেই অসফলতা । যদি আপনি ভাবেন যে অনলাইন থেকে টাকা আয় করা খুব সহজ কাজ তাহলে আপনি ভুল ভাবছেন ।


আপনাকে একটি কথা সব সময় মনে রাখতে হবে যে বাইরের জীবনে যেরকম পরিশ্রম করেন ইন্টারনেটও সেই রকমই পরিশ্রম করতে হবে । যেমন আমি এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইটের তথ্য দিচ্ছি এর জন্য আমাকে অনেক রিসার্চ এবং কাজ করতে হয়েছে ।


আমি অনেক অনেক সাইট চেক করেছি, দেখেছি যে কোন সাইটে পেমেন্ট করে আর কোনটি করে না । কোনটি ভালো কোনটি মন্দ সবকিছু জেনে নেয়ার পর এই আর্টিকেলটি লিখতে শুরু করেছি ।


এখানে অনেক সময় ও অনেক পরিশ্রম লাগে । একইরকমভাবে আপনি যেমন সিনেমা বা গান দেখে থাকেন এর জন্য শুটিং এবং পরিশ্রম করতে হয় এর জন্য অনেক অভ্যাস করতে হয় তবে যেন একটি সিনেমা তৈরি হয় ।


তাহলে চলুন দেখা যাক এমন টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট যেখান থেকে আপনিও ভালো পরিমাণে টাকা আয় করতে পারবেন ।


আরো পড়ুন:-ফেসবুক পেজ থেকে টাকা ইনকাম করার উপায় | কিভাবে ফেসবুক পেজ থেকে টাকা আয় করা যায়


    Amazon অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং


    Amazon একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট । হয়তো আপনিও এখান থেকে কিছু না কিছু প্রোডাক্ট অর্ডার করেছেন । এটি একটি বিশ্বের সবথেকে বড় ই-কমার্স ওয়েবসাইট থেকে একটি । আপনি কি জানেন এই ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করা যায় । হতে পারে আপনি কোথাও শুনেছেন বা ইউটিউব ভিডিও দেখার সময়, বা কোনো আর্টিকেল পড়ে বুঝতে পেরেছেন যে Amazon অন্যান্য লোকদের টাকা উপার্জনেরও সুযোগ দেয়।


    চলুন তাহলে আপনাকে বলে দেওয়া যাক Amazon অনেকভাবেই টাকা উপার্জন করার সুযোগ দিয়ে থাকেন । প্রথম উপায় হলো যে আপনি Amazon এফিলিয়েট মার্কেটিং এ জয়েন হতে পারেন । এফিলিয়েট মার্কেটিং কি এর সম্বন্ধে আপনাকে  জানা উচিত তাহলেই আপনি বুঝেতে পারবেন যে, এখানে join হয়ে কিভাবে টাকা আয় করা যায় ।


    অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর অর্থ হলো আপনি যে কোনও ই-কমার্স ওয়েবসাইট বা অন্য ইন্টারনেট ওয়েবসাইটের প্রোডাক্ট জনগণের কাছে প্রচার এবং বিক্রি করা ।


    এই প্রোডাক্ট বিক্রির বিনিময়ে আপনাকে কিছু পার্সেন্ট কমিশন দেওয়া হয় একেই বলা হয় এফিলিয়েট মার্কেটিং । এমন অনেক প্রোডাক্ট রয়েছে যার মধ্যে কমিশনের হার খুব বেশি, তাই এতে টাকা আয় খুব ভাল হয় ।


    প্রথমত, আপনাকে Amazon এর সাইটে যেতে হবে এবং এর অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে join হতে হবে ।  এর পরে, আপনি যে প্রোডাক্টটির বিজনেস মার্কেটিং করতে চান সেই প্রোডাক্টটির অ্যাফিলিয়েট লিঙ্ক তৈরি করুন ।


    এর পরে, আপনার লিঙ্কটির মাধ্যমে আপনার প্রোডাক্ট বা যা কিছু বিক্রয় হয়, এর জন্য আপনি কিছু কমিশন পাবেন । কমিশন বিভিন্ন প্রোডাক্টের জন্য বিভিন্ন পার্সেন্টেজ দেওয়া হয় ।


    Flipkart অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং


    ফ্লিপকার্ট মূলত একটি ভারতীয় কোম্পানি । খুব অল্প সময়ে মধ্য এটি অনেক এগিয়ে গেছে । তাদের ব্যবসা বাড়াতে তারা অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে দিয়ে আরও বেশি বেশি লোকের কাছে তাদের প্রোডাক্ট বিক্রি করতে চান । যে কারণে এর অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে যোগ দিয়ে অনেক লোক প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করে । আপনি যেভাবে Amazon অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ জয়েন হয়েছেন ঠিক সেরকম ভাবেই ফ্লিপকার্টও তাদের অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম চালিয়ে থাকেন । 


    আরো পড়ুন:-লুডু গেম খেলে টাকা ইনকাম | অনলাইনে লুডু খেলে টাকা ইনকাম


    যদি আপনি এই ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করতে চান তাহলে আপনাকে তাদের এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ জয়েন করতে হবে । কিন্তু আপনাকে একটা কথা বলি এদের এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এক্টিভেট নেটওয়ার্ক নতুন মেম্বার দের জন্য কিছু দিনের জন্য বন্ধ রয়েছে ।


    শীঘ্রই এটি শুরু করা হবে । এখানে নতুন মেম্বারদের জন্য রেজিস্ট্রেশন পুরোপুরি ভাবে বন্ধ রয়েছে । যারা পুরানো অ্যাফিলিয়েট আছে তারা এখনো সেখানে কাজ করছেন ।


    আপনি তাদের ওয়েবসাইটের প্রডাক্ট কে প্রমোট করার জন্য ফেসবুক অ্যাকাউন্ট, ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট, টুইটার, হোয়াটঅ্যাপস, ওয়েবসাইট, ব্লগ, ইউটিউব চ্যানেল ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন । আপনার দ্বারা প্রমোট করা এফিলিয়েট লিংক দিয়ে কোনো প্রোডাক্ট যদি বিক্রি হয় তার বিনিময়ে আপনি কিছু কমিশন পেয়ে যাবেন ।


    ফ্লিপকার্ট তাদের এফিলিয়েট মেম্বারকে 2 রকম ভাবে পেমেন্ট করে থাকে । প্রথম ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার এর মাধ্যমে পেমেন্ট করে থাকেন এবং দ্বিতীয় হল গিফট কার্ড এর মাধ্যমে পেমেন্ট করেন ।


    যখন আপনার অ্যাকাউন্টে 50 টাকা জমা হয়ে যাবে তখন আপনি সেটি ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার এর মাধ্যমে আপনার একাউন্টে নিতে পারবেন । আর 5000 টাকা থেকে যদি অধিক হয় তাহলে আপনি গিফট কার্ড এর মাধ্যমে টাকা নিতে পারবেন ।


    Google Adsense থেকে টাকা ইনকাম


    গুগলকে যদি ইন্টারনেটের রাজা বলা হয় তাহলে কোন ভুল বক্তব্য নয় । আজ পুরো বিশ্বে ইন্টারনেটের নামে সবথেকে ফেমাস হলো "গুগোল" । গুগোল প্রত্যেক বছর তাদের কোম্পানিকে বাড়ানোর জন্য এক থেকে দুই এভারেজ প্রোডাক্ট লাঞ্চ করেন ।


    অধিকতর প্রোডাক্ট তাদের সাকসেসফুল হয়ে যায়  আর এর মধ্যেও সাকসেসফুল প্লাটফর্ম হল গুগল অ্যাডসেন্স ।


    কোন ব্যাক্তি বা কোম্পানি তাদের প্রডাক্ট কে সেল বা জনগণের কাছে পৌঁছানোর জন্য এডভেটাইজ করে থাকেন । এডভেটাইজ করার জন্য সেই কোম্পানি গুগলের সঙ্গে যোগাযোগ করেন এবং তাদের প্রডাক্ট কে এডভেটাইজ করার জন্য পেমেন্ট করে । গুগোল তাদের প্রডাক্ট কে বিজ্ঞাপনের এর মাধ্যমে আলাদা আলাদা প্লাটফর্মে দেখান ।


    আরো পড়ুন:-গুগল থেকে টাকা আয় | কিভাবে গুগল থেকে টাকা আয় করা যায়


    মূলত, তিনটি প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে এরা বিজ্ঞাপনগুলি চালায় এবং জনগণের কাছে পৌঁছান । যে কোনো ওয়েবসাইট বা ব্লগ, ইউটিউব চ্যানেল এবং যে কোনও মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন এডমিনের দ্বারা Monetize করা হয় ।


    এটি একটি এমন ওয়েবসাইট যেখানে কোনও ব্লগার, ইউটিউবার এবং মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ডেভলপার তাদের প্ল্যাটফর্মের জন্য Monetize এর জন্য এপ্লাই করেন ।


    যখন এটি approve হয় তারপরে গুগল অ্যাডসেন্স তার ব্লগ, ইউটিউব চ্যানেল বা মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনটিতে এর বিজ্ঞাপনগুলি দেখানো শুরু করে ।


    এভাবে গুগল এডসেন্স থেকে ভালো পরিমাণে টাকা আয় হয়ে থাকে । গুগল এডসেন্স থেকে আয় করা টাকা আপনার ব্যাংক একাউন্টে সরাসরি মাসে মাসে নিতে পারবেন ।


    ভারতের মধ্য ওয়েবসাইট বা ব্লগ ইউটিউব চ্যানেল যারা চালিয়ে থাকেন তাদের আয় করার মূল স্রোত হল গুগল এডসেন্স ।


    ইউটিউব ওয়েবসাইট থেকে টাকা ইনকাম


    প্রত্যেকদিন লাখ লাখ লোক ইউটিউব ওপেন করে থাকেন আর এখানে আপলোড করা সিনেমা, ভিডিও, গান, অনলাইন কোর্স ইত্যাদি দেখে মনোরঞ্জন করেন ।


    এটি একটি এমন ওয়েবসাইট যা বর্তমানে টাকা ইনকাম ভালো উপায় বলতে পারেন । পরতেক ব্যক্তির কাছে কিছু না কিছু ট্যালেন্ট রয়েছে যদি সেই ট্যালেন্ট কে কাজে লাগিয়ে জনগণের কাছে পৌঁছাতে পারেন তাহলে তার পক্ষে টাকা আয় করা খুব কঠিন কাজ নয় ।


    ইউটিউবে লাখ লাখ ভিজিটর পাওয়া যায় । এই কারণেই যার কিছু টেলেন্ট রয়েছে সেই টেলেন্টকে ভিডিওর মাধ্যমে ভিডিও বানিয়ে ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করেন ।


    লোকেরা যদি ভিডিওটি পছন্দ করে বা অন্যথায় এটির কন্টেন্ট খুব ভাল হয়, তবে অটোমেটিক কয়েক মিলিয়ন ভিজিটর তার ভিডিও দেখে, যা তার ভাল আয় হয় ।


    ইউটিউবে কাজ করা লোকেরা বিভিন্ন উপায়ে টাকা উপার্জন করতে পারে কেবল একটি উপায় নেই ।  ইউটিউব চ্যানেল চালিত লোকেরা গুগল অ্যাডসেন্স approve এর পরে টাকা উপার্জন করেন ।


    দ্বিতীয় উপায় আমি আপনাকে উপরে বলেছি amazon বা ফ্লিপকার্ট এর এফিলিয়েট মার্কেটিং করেও টাকা আয় করেন । এছাড়াও কারো যদি ইউটিউব চ্যানেলে অনেক সাবস্ক্রাইবার থেকে থাকে তাহলে তার সাথে বড় বড় কোম্পানি তাদের প্রোডাক্ট প্রমোট করার জন্য সেই চ্যানেলের সঙ্গে যোগাযোগ করেন এবং তাদের প্রোডাক্ট যেমন মোবাইল, ল্যাপটপ, গেজেট ইত্যাদি প্রমোট করার বিনিময়ে টাকা দেন ।


    Fiverr ওয়েবসাইট থেকে টাকা ইনকাম


    যদি আপনার কাছে কোন স্কিল বা কোন বিষয়ের উপর নলেজ থেকে থাকে যার সম্বন্ধে আপনি খুব ভালোভাবে জানেন । তাহলে আপনি আপনার স্কিল বা জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে Fiverr ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করতে পারবেন ।


    আপনার কাছে যে বিষয়ের উপর নলেজ আছে আর যদি কারো এর দরকার হয় তাহলে আপনার সাথে যোগাযোগ করবেন । আপনি যদি তার কাজটি পুরা করে দেন তার বিনিময়ে আপনাকে টাকা দিবে ।


    অনলাইন থেকে যে কাজগুলো হয়, অনেকেই এই ওয়েবসাইটে সার্চ করেন । যার কাছে স্কিল রয়েছে তার স্কিলের মাধম্যে Gig তৈরি করেন এরপর ডেলিভারি সময় অনুসারে তার মূল্য লিখে দেন । মানে এই যার ডেলিভারি তাড়াতাড়ি চান তার জন্য আরো বেশি চার্জ করেন ।


    আরো পড়ুন:-ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে শিখব | ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায়


    আপনি যদি কিছু বিলম্বের পরে সার্ভিস দেন তবে তার জন্য কম চার্জ নেওয়া হয়, এইভাবে নিজের দক্ষতার তথ্য Gig এর মাধ্যমে দেওয়া হয় যে আমি এই কাজটি করার ক্ষেত্রে এক্সপার্ট, যদি আপনি চান তবে আপনি আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন ।


    মূলত ওয়েব ডেভলপার, লোগো ডেভলপার, এসইও এক্সপার্ট, সফটওয়্যার ডেভলপার, অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভলপার, আর্টিকেল writer তাদের সঙ্গে প্রয়োজনীয় লোকেরা যোগাযোগ করেন ।


    পেমেন্ট আগে প্রদান করা হয়, তার পরে লোকেরা তাদের গিগ অনুযায়ী সময়মতো ডেলিভারি দেয় ।  এইভাবে, এই ওয়েবসাইটটি যে কোনও দক্ষ ব্যক্তি বা telented ব্যক্তির জন্য উপার্জনের একটি খুব ভাল ওয়েবসাইট ।


    Fiverr থেকে পেমেন্ট নেওয়ার জন্য আপনি PayPal account এর মাধ্যমে নিতে পারবেন ।


    Infolinks ওয়েবসাইট থেকে টাকা ইনকাম


    এটিও একটি গুগল এডসেন্স এর মতই একটি ওয়েবসাইট । যেমনভাবে গুগল অ্যাডসেন্স থেকে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে মনেটাইজ করে টাকা আয় করেন ঠিক ওরকম ভাবেই Infolinks থেকে টাকা আয় করতে পারবেন । এরকম অনেক ওয়েবসাইট বা ব্লগ থাকে যেগুলোতে গুগল এডসেন্স অ্যাপ্রুভ হয় না । যদি এরকম সাইটে ভালো পরিমানের ভিজিটর থেকে থাকে তাহলে আপনি ওই ওয়েবসাইট থেকে Infolinks এর অ্যাড লাগিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন ।


    এই ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করতে চান তবে এটির একটি সাধারণ ফর্মুলা রয়েছে আপনাকে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে অধিক পরিমাণে ট্রাফিক থাকা প্রয়োজনীয় তবে আপনি এই ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করতে পারবেন ।


    ফ্রিল্যান্সার ওয়েবসাইট থেকে টাকা ইনকাম


    টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট :-

    ফ্রিল্যান্সার ওয়েবসাইট তাদের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ যারা ঘরে বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে টাকা আয় করতে চান । এটিও একটি Fiverr এর মতোই ওয়েবসাইট । যার টেলেন্ট আর স্কিল রয়েছে তারাই এই ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করতে পারবেন ।


    যদি আপনার কাছে কোন রকমের টেলেন্ট বা দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি এখানে রেজিস্ট্রেশন করে আপনার একটি সুন্দর প্রোফাইল তৈরি করতে হবে । রেজিস্ট্রেশন করার পর আপনাকে আপনার কাজ অনুসারে লোকে হায়ার করবে ।


    যদি আপনি তার প্রয়োজনীয় অনুসারে কাজ করার যোগ্য হয়ে থাকেন তাহলে আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করবেন । আর কাজ করার বিনিময়ে সে টাকা প্রদান করবেন ।


    ফ্রিল্যান্সার বা Fiverr এর অন্তর্গত কিছু কাজের লিস্ট নিচে দিচ্ছি যদি আপনি এই কাজগুলোর মধ্যে কোন একটি কাজ করতে সক্ষম তাহলে আপনি অবশ্যই এই ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করতে পারবেন । কাজগুলি নিম্নরূপ :-


    • App Developement
    • Data Entry
    • Linux
    • Logo Designing
    • Internet marketing
    • Banner Desinging
    • Finance
    • Web Desinging/Developement
    • Content Writing
    • 3D Modelling
    • Graphic Desiging
    • SEO Expert
    • Desktop Publishing
    • PHP
    • Logistics
    • Manufacturing


    vCommission থেকে টাকা ইনকাম


    vCommission এ CPA আধারে কাজ হয়ে থাকে ।

    CPA এর অর্থ হচ্ছে Cost per Action. এফিলিয়েট মার্কেটিং এ যখন কোন প্রোডাক্ট সেল হয় তার কিছু কমিশন দেন । এটিও একটি এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক এর মতই প্রোডাক্ট সেল করার বিনিময়ে CPA এর মাধ্যমে কমিশন দিয়ে থাকে ।


    যখন আপনি vCommission ওয়েবসাইটে এপ্লাই করবেন এরপর যদি আপনার একাউন্ট approve হয়ে যায় । vCommission কোম্পানির তরফ থেকে আপনাকে একটি ম্যানেজার দেবেন যে আপনাকে কাজ করার জন্য সাহায্য করবে ।


    এই ওয়েবসাইটের প্রোডাক্ট গুলি বিভিন্ন রকমের হতে পারে যেমন যেগুলো অনলাইনে ব্যবহার করা হয় । এই ওয়েবসাইট আমাজন বা ফ্লিপকার্ট এর থেকে কিছুটা আলাদা রকমের । আমাজন বা ফ্লিপকার্ট এর প্রোডাক্ট গুলি আমরা সাধারণ নিত্যদিনের কাজ হিসেবে ব্যবহার করে থাকি ।


    কিন্তু vCommission ওয়েবসাইটে প্রোডাক্ট গুলি অধিক অনলাইন ব্যবহারের পক্ষে কাজে লাগে । বিশেষত যারা ইন্টারনেটে ওয়েবসাইটের জন্য হোস্টগেটর, ব্লুহোস্ট, ইনমোশন হোস্টিং ইত্যাদি ওয়েব হোস্টিংয়ের সন্ধান করেন ।


    এছাড়াও মনোরঞ্জন এর সাথে যুক্ত কিছু ওয়েবসাইট তাদের ডিসকাউন্ট অফার আর কুপন এই সাইটের মাধ্যমে লোকের কাছে পৌঁছান । অনেক রকমের অ্যাপ্লিকেশনকে প্রমোট করতে দেখেছেন এইরকম অ্যাপ ইনস্টল করার জন্য কমিশনের মাধ্যমে এই ওয়েবসাইটে দিয়ে থাকেন ।


    ওয়েবসাইট আর ব্লগে যে থিম ব্যবহার করা হয় আর প্লাগিন এগুলির এফিলিয়েট এই ওয়েবসাইটের দ্বারা দিয়ে থাকে ।


    এই ওয়েবসাইট থেকে আপনাকে পেমেন্ট নেওয়ার জন্য ব্যাংক একাউন্ট এর সঙ্গে যুক্ত করতে হবে । যখন আপনার অ্যাকাউন্টে 5000 টাকা হয়ে যাবে তখন আপনি সেটি ব্যাংক একাউন্টে সহজেই টেনেস্পার করে নিতে পারবেন । এছাড়াও আপনি পেপাল একাউন্ট এর ব্যবহার করতে পারেন ।


    BlueHost অ্যাফিলিয়েট থেকে ইনকাম


    Bluehost ওয়েব হোস্টিং ওয়েবসাইট এর রূপে অনেক ফেমাস । এর সার্ভিস অনেক ভালো হয়ে থাকে এই জন্যই লোকে এর শেয়ার্ড হোস্টিং অনেকই ব্যবহার করে থাকেন ।


    হোস্টিং সেবা দেওয়ার সাথে সাথে এখানে তাদের অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামও দিয়ে থাকেন । যারা এর ব্যবহার করেছেন তারা সহজেই এদের থেকে লাভাংশ নিতে পারবেন । আপনি আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সহজেই এদের লিংক প্রমোট করে লাভ নিতে পারবেন ।


    Bluehost এর সাথে যুক্ত হয়ে এর মার্কেটিং করেলে তারা কুপন দেন আর এই কুপনের মাধ্যমে যারা ক্রয় করেন তারা কিছু ডিসকাউন্ট পেয়ে যান । যার কারণে এর এফিলিয়েট প্রোগ্রাম ভালো কাজ করে । এখানে কমিশন amazon এর তুলনায় অনেক ভালো পেয়ে যাবেন । এজন্যই এর এফিলিয়েট প্রোগ্রাম অনেক ফেমাস ।


    Bluehost অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ জয়েন হওয়ার জন্য প্রথমে আপনাকে এখানে অ্যাকাউন্ট বানিয়ে নিতে হবে । যখন আপনি এখান থেকে approval পেয়ে যাবেন তখন তাদের এফিলিয়েট লিংক, ইমেজ, বেনার আপনার ওয়েবসাইটে লাগিয়ে ডিসকাউন্টে এর সাথে হোস্টিং বিক্রি করতে পারবেন । এভাবে আপনি এখান থেকে তাদের এফিলিয়েট নেটওয়ার্কে জয়েন হয়ে টাকা উপার্জন করতে পারবেন ।


    Hostgator অ্যাফিলিয়েট থেকে ইনকাম


    BlueHost এর থেকেও বেশি famus হচ্ছে Hostgator । এর শেয়ার্ড হোস্টিং নতুন ব্লগারদের পক্ষে অনেক পপুলার । যারা নতুন ব্লগার তারা Hostgator থেকে তারা কম দামে ভালো ওয়েব হস্টিং পেয়ে যান । যার কারণে Hostgator অনেক ফেমাস । কাহাকেও সাজেস্ট করার থাকলে প্রথম নাম আসে Hostgator.


    BlueHost এর মতোই hostgator এর সেম প্রোসেস । এখানে আপনাকে এদের এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ জয়েন করতে হবে । এর জন্য আপনাকে সাইনআপ করে একটি একাউন্ট বানিয়ে নিতে হবে ।


    এরপর আপনাকে তাদের এফিলিয়েট লিংকটিকে আপনার ব্লগে ইমেজ, বেনার বা লিংক এর সাহায্যে শেয়ার করতে পারবেন ।


    আপনার লিঙ্ক বা ব্যানার মাধ্যমে যদি কেউ hostgator হোস্টিং ক্রয় করে থাকেন তার বিনিময়ে আপনি কিছু কমিশন পেয়ে যাবেন । যেটি আপনি আপনার একাউন্টে টেনেস্পার করে নিতে পারবেন ।


    আজকাল সময়ে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার জন্য অনেক লোক চেষ্টা করে যাচ্ছে । প্রত্যেকদিন অনেক লোক গুগলে সার্চ করেন যে অনলাইন থেকে টাকা আয় কিভাবে করা যায় ? গুগোল থেকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় ?


    আরো পড়ুন:-Best Paytm cash earning apps without investment 2021 | গেম খেলে টাকা আয় করার উপায়


    আবার অনেক লোক এটা লিখেও সার্চ করেন যে "অনলাইন থেকে টাকা আয় করার ওয়েবসাইট" এই জন্যই আজ এই আর্টিকেলটি পোস্ট করেছি । এই আর্টিকেলে আমি যে সকল ওয়েবসাইট এর লিস্ট করেছি সেগুলি থেকে 100% টাকা আয় করতে পারবেন । যদি এই পোস্টটি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যয় শেয়ার করতে ভুলবেন না । ধন্যবাদ


    একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

    0 মন্তব্যসমূহ